গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যম একান্ত সহায়ক: তথ্যমন্ত্রী

980
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে গণমাধ্যম একান্ত সহায়ক। বর্তমান সরকার বিশ্বাস করে সংবাদপত্র তথা গণমাধ্যম দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে।

মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সংসদ সদস্য মো. আমিনুল ইসলামের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশন শুরু হয়। অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার মন্ত্রীদের প্রশ্ন টেবিলে উত্থাপিত বলে ঘোষণা দেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ১২ বছরে দেশে দৈনিক সংবাদপত্রের সংখ্যা ৪৪৫ থেকে ১৩০০ উন্নীত হয়েছে। পাশাপাশি মিডিয়া তালিকাভুক্তির মাধ্যমে পত্রিকা গুলোতে সরকারি বিজ্ঞাপন দেওয়া ও জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবসসমূহে ক্রোড়পত্র প্রকাশের সুযোগ দিয়ে সংবাদপত্রকে সহযোগিতা দেওয়া হয়ে থাকে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, “সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি ‘বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করেছে। এর আওতায় এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৬৪০ জন সাংবাদিককে ১৪ কোটি ৭ লাখ টাকা সহায়তা দেওয়া হয়েছে। করোনাকালে সমস্যা মোকাবিলায় সারাদেশে তিন হাজার সাংবাদিককে ৩ কোটি ৩৫ লাখ টাকা এককালীন আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে। যা উপমহাদেশের অন্য কোনো দেশে করা হয়নি।’

সংসদ সদস্য মো. আবদুস শহীদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘সারাদেশে গুজব ও সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে অপপ্রচার রুখতে এর বিভিন্ন ক্ষতিকর দিক তুলে ধরে বাংলাদেশ টেলিভিশন বর্তমানে জনসচেতনামূলক বিভিন্ন স্পট/ ফিলার নিয়মিতভাবে প্রচার করে আসছে। প্রচার করা অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে- গুজবে কান দিবেন না, গুজবে জড়িতদের গ্রেফতারে মাঠে পুলিশ-র‌্যাব, গুজবে বিভ্রান্ত না হয়ে ৯৯৯ নম্বরে কল করুন ইত্যাদি।’

শেয়ার করতে ক্লিক করুন