চিকিৎসার সঙ্গে জড়িতদের আগে টিকা দেয়া হবে

995
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

রাজধানীসহ সারা দেশে যারা সরাসরি চিকিৎসা সেবার সঙ্গে জড়িত, তাদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনাভাইরাসের টিকার আওতায় আনা হবে। চীন সরকারের কাছ থেকে উপহারের যে পাঁচ লাখ টিকা পাওয়া গেছে, তা দিয়ে মেডিকেল কলেজ, নার্সিং ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি, মেডিকেল অ্যাসিস্টেন্ট ট্রেনিং স্কুলের শিক্ষার্থীসহ আড়াই লাখ মানুষকে টিকা দেয়া হবে।

আজ (মঙ্গলবার) সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চীনা টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের উদ্ভোধনকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট উৎপাদিত অক্সফোর্ডের অ্যাসট্রাজেনেকার তিন কোটি ডোজ টিকার চুক্তি করা হলেও পাওয়া গেছে এক কোটি ডোজ। ভারতের অবস্থা খারাপ হওয়ায় নতুন করে আর টিকা পাওয়া যায়নি। তবে আশা করি আগামীতে পাব। তবে বিকল্প উপায়ে বিভিন্ন সোর্স থেকে টিকা সংগ্রহের চেষ্টা চলছে।’

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও পরামর্শে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চীন ও রাশিয়া থেকে টিকা সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। চীনের টিকা সংগ্রহের কাজ অনেক দূর এগিয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে করোনা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। আর স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলাফেরা করলে কোভিড-১৯ বৃদ্ধি পাবে। বর্তমানে করোনা সংক্রমণের যে সেকেন্ড ওয়েভ চলছে তা প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বিনোদনকেন্দ্রে ঘুরে বেড়ানো, বিয়েসহ সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও মিটিং-মিছিল-জনসমাবেশের কারণে হয়েছিল। লকডাউন দিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।’

তবে, ‘লকডাউন বার বার দেয়া যায় না। এতে মানুষের আর্থিক ক্ষতি হয় বলে তিনি মন্তব্য করেন। কোনো দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে সে দেশের অর্থনীতি, সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি সব কিছুই বেসামাল হয়ে যায়। তাই প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে রাখতেই হবে’, বলে মন্ত্রী মন্তব্য করেন।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন