পরীমনির ‘গডফাদার’ ছিলেন নজরুল রাজ!

973
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

চিত্রনায়িকা পরীমনি ও প্রযোজক নজরুল রাজকে আটকের পর নড়েচড়ে বসেছে ফিল্মপাড়া। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারিতে আছেন আরও বেশ কয়েকজন নায়িকা। তালিকায় শিরিন শিলা, আঁচল আঁখির নামও রয়েছে বলে সূত্রের খবর।

পরীমনিকে শোবিজ দুনিয়ায় নিয়ে এসেছিলেন নজরুল রাজ। সিনেমায় অভিনয়ের আগে রাজের কাছেই থাকতেন পরীমনি। গোপালগঞ্জের নজরুল ইসলাম রাজ গেল কয়েক বছর আগে আলোচনায় আসেন। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর নিজ জেলায় বেপরোয়া হয়ে ওঠেন তিনি।

র‌্যাব বলছে, পরীমনির গডফাদার হিসেবে পরিচিত নজরুল রাজ। কখনো ব্যবসায়ী, কখনো রাজনীতিবিদ, আবার কখনো প্রযোজক-পরিচালক। একেক সময় একেক পরিচয় ধারণ করতেন। এসব করে অঢেল সম্পত্তির মালিক হয়েছে নজরুল।

এছাড়া সিনেমাপাড়ায় বেশ সক্রিয় ছিলেন নজরুল রাজ। ফিল্ম সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সমিতির নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করতেন তিনি। নাটক-সিনেমার প্রতিষ্ঠিত মডেল-অভিনেত্রীদের পাশাপাশি উঠতি অনেক মডেল ছিল তার পছন্দের তালিকায়। এদের দিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের ফায়দা লুটে নিতে নজরুল রাজ।

বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে বনানীর বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ আটক করা হয় পরীমনিকে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার সঙ্গে নজরুল রাজের যোগসূত্র পাওয়া যায়। এরপর নজরুলের বাসা এবং রাজ মাল্টিমিডিয়ার অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব। মাদক এবং বিকৃত যৌনাচারের নানা সরঞ্জামসহ আটক করা হয় নজরুল রাজকে।

ক্যাসিনো কাণ্ডে গ্রেপ্তার হওয়া ইসমাঈল চৌধুরী সম্রাট, আরমান এবং জিকে শামীমের সঙ্গেও সখ্য ছিল রাজের। মডেল এবং নায়িকাদের দিয়ে তাদের কাছাকাছি যান নজরুল রাজ। জিকে শামীমেরর বোনের সঙ্গেও যোগাযোগ ছিল রাজের। এমন তথ্যও জানা গেছে সূত্রে।

এদিকে নজরুলের বেশ কয়েকটি ব্যাংক হিসেবের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে র‌্যাব। ১৪টি ব্যাংক হিসেবে প্রায় ৯ কোটি টাকার লেনদেনের তথ্য পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ব্যাংকের বাইরেও বিপুল পরিমাণ অর্থ রয়েছে তার।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন