দেশ থেকে তেল পাচার হচ্ছে ভারতে

580
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

ভারতে জ্বালানি তেলের দাম কমলেও বাংলাদেশের তুলনায় বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে তেল। আর এ কারণে বাংলাদেশ থেকে তেল সীমান্ত দিয়ে পাচার অব্যাহত রয়েছে।

বাংলাদেশের তুলনায় ভারতে দাম বেশি হওয়ায় পাচারে সক্রিয় একটি অসাধু চক্র। শুধু পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন অলিখিতভাবে বাংলাদেশ থেকে পাচার হচ্ছে লাখ লাখ লিটার জ্বালানি তেল।

তেল পাচারের অভিযোগ স্বীকার করেছেন দেশটির ট্রাক চালক ও সীমান্ত অঞ্চলের বাসিন্দারাও। তারা জানিয়েছেন, বাংলাদেশে তেলের মূল্য কম। এর ফলে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকগুলোর তেলের ট্যাঙ্কি বাংলাদেশে ঢুকেই ভর্তি করা হয়।

বাংলাদেশে ডিজেলের দাম যখন ৬৫ টাকা তখন ভারতে প্রতি লিটার ডিজেল বিক্রি হয়েছে ১০২ টাকা পর্যন্ত। গেল ৩ নভেম্বর রাত থেকে বাংলাদেশ সরকারের বর্ধিত ডিজেলের মূল্য যখন ৮০ টাকা তখন ভারতের বাজারে ডিজেল বিক্রি হচ্ছে ৯০ রুপিতে।

সীমান্তের এপার এবং ওপারের মধ্যে এ দামের ব্যবধানই সীমান্তের ভারতীয় অংশে জ্বালানি পাচারকারীদের কাছে বড় ব্যবসায়িক সুযোগ বলে মনে করা হচ্ছে। এই সুযোগে পশ্চিমবঙ্গের সীমান্তে গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি পাচারচক্র। ফলে বাংলাদেশ থেকে হাজার হাজার লিঠার পেট্রোল-ডিজেল চোরাইপথে ভারতে ঢুকছে। এর ফলে পাচারকারীদের লাভ হয় লিটারে ১৪ থেকে ১৭ টাকা।

ভারত সরকার জ্বালানি তেলের ওপর গত ৪ নভেম্বর থেকে শুল্ক হ্রাস করায় দেশটিতে তেলের দামের ঊর্ধ্বগতি কিছুটা কমেছে। দেশটির মেট্রো শহরগুলোর মধ্যে দিল্লি ও কলকাতাতেই এখন কম মূল্যে বিক্রি হচ্ছে পেট্রোল-ডিজেল।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন