‘আইন নয়, সরকারই খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসায় বাধা’

706
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতি হচ্ছে জানিয়ে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আইন নয় সরকারই বেগম জিয়ার সুচিকিৎসায় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সারাদেশে মসজিদে দোয়া ও মোনাজাত কর্মসূচির অংশ হিসেবে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে, বেগম জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোয়া শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

ড. খন্দাকর মোশাররফ হোসেন বলেন, বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় যত দ্রুত সম্ভব বিদেশে নিতে হবে তাকে। আইনের কথা বলে কোনো লাভ নেই। আইনজীবীরা বলেছেন, কোনো বাধা নেই। এখানে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সরকার। এই সরকার আমাদের নেত্রীকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার ব্যাপারে যেসব বাধা আছে, সেসব বাধা দূর করে অনুমতি দেওয়ার জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে, হাসপাতালে বেগম জিয়ার সঙ্গে দেখা করার পর মওলানা ভাসানীর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, বিএনপি নেত্রীর অবস্থা সংকটাপন্ন, তার কথা বলতে কষ্ট হচ্ছে।

মাওলানা ভাসানীর মেয়ে মাহমুদা খানম ভাসানী বলেন, খালেদা জিয়ার অবস্থা খুবই খারাপ। আস্তে আস্তে কথা বলতে পারেন তিনি। মাওলানা ভাসানীর নাতি মাহমুদুল হক শানু বলেন, চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। দেশে কোনো কিছুই করা সম্ভব না।

প্রথম দফায় ৫৩ দিন চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরলেও দ্বিতীয় ধাপে আবারও ২৬ দিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। মাত্র ৬ দিনের ব্যবধানে আবারও হাসপাতালে ভর্তির পর এভারকেয়ারের সিসিইউতে চিকিৎসা নিচ্ছেন বিএনপি নেত্রী।

খালেদা জিয়া আর্থাইটিস, হার্ট, লিভার, কিডনি ও ডায়াবেটিসসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে গত ১৩ নভেম্বর তৃতীয় দফায় হাসপাতালে ভর্তি হলে এরপর থেকেই একের পর এক কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি।

শুক্রবার বাদজুমা বায়তুল মোকাররম মসজিদে বেগম জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় পূর্বঘোষিত দোয়া মোনাজাত কর্মসূচিতে অংশ নেন বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। দেশের সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ের প্রার্থনার পাশাপাশি জাতীয় মসজিদেও বেগম জিয়ার দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন তারা।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন