ডেলটার চেয়ে কম ভয়াবহ হতে পারে ওমিক্রন : ড. ফসি

529
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, নভেল করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়্যান্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। তবে এর প্রাথমিক লক্ষণ দেখে মনে হচ্ছে—এটি ডেলটা ভ্যারিয়্যান্টের চেয়ে কম ভয়াবহ হবে। সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের এক প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রধান স্বাস্থ্য উপদেষ্টা ড. অ্যান্থনি ফসি সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র ‘স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন’ অনুষ্ঠানে বলেছেন, ওমিক্রনের ভয়াবহতা নিয়ে নিশ্চিত করে বলতে বিজ্ঞানীদের এ ভ্যারিয়্যান্টের বিষয়ে আরও তথ্য জানা প্রয়োজন।

ড. ফসি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত মনে হচ্ছে না এর ব্যাপক ভয়াবহতা রয়েছে। কিন্তু, এটা যে অসুস্থতার তীব্রতার দিক দিয়ে ডেলটার চেয়ে কম, সেরকম নিশ্চিত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে আমাদের আরও সতর্ক থাকতে হবে।’

ড. ফসি জানান, ওমিক্রনের উত্থানের পর দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকার যেসব দেশ থেকে মার্কিন নাগরিক নন এমন লোকজনের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল তা তুলে নেওয়ার কথা ভাবছে বাইডেন প্রশাসন।

অন্যদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মহামারি বিশেষজ্ঞ ড. মারিয়া ভন কেরখোভ মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিবিএস’র ‘ফেস দ্য নেশন’ অনুষ্ঠানে বলেন, ‘ওমিক্রন যদি ডেলটার চেয়ে কম ভয়াবহ প্রমাণ হয়, তবুও এটি একটি সমস্যা হিসেবে রয়ে যাবে।’

যে দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন এ ভ্যারিয়্যান্ট প্রথম শনাক্ত হয়েছে, সেখানে এটি এরই মধ্যে প্রধান ভ্যারিয়্যান্ট হয়ে উঠছে। তবে, দেশটিতে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা বিপজ্জনক হারে বাড়েনি।

গতকাল রোববার পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ১০টি অঙ্গরাজ্যে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। সর্বশেষ উইসকনসিন, মিসৌরি ও লুইজিয়ানায় ওমিক্রন ধরা পড়ে।

অন্যদিকে, এ পর্যন্ত বিশ্বের ৪০টির বেশি দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। ২২ নভেম্বর প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকায় এটি শনাক্ত হয়। দুদিন পর ২৪ নভেম্বর একে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন’ বা উদ্বেগজনক ভ্যারিয়্যান্ট ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন