টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে সুখবর পেল বাংলাদেশ

780
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের পর বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট তালিকায়ও সুখবর পেল বাংলাদেশ। টেস্টের বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডকে টপকে শীর্ষ পাঁচে উঠে এসেছে বাংলাদেশ।

কিউইদের মাটিতে এর আগে কোনো ফরম্যাটেই জিততে পারেনি টাইগার বাহিনী। সেই গেরো কাটল ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ দিয়েই তাও আবার ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে প্রথম জয় তো বটেই, এছাড়া আরও অনেক প্রথমের জন্ম দিয়েছে এ জয়। দেশের বাইরে টপ পাঁচ টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে প্রথম জয়ও এটি।

এদিকে রেকর্ডগড়া এই জয়ে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে মূল্যবান ১২টি পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ। বুধবার (৫ জানুয়ারি) আপডেট করা পয়েন্ট তালিকায় দেখা যাচ্ছে, ১২ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান পাঁচে। তাদের আগে আছে কেবল চারটি দেশ। তিন জয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার শীর্ষে আছে অস্ট্রেলিয়া। চলমান অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম তিনটি টেস্টেই ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে দিয়ে এমন অবস্থান তাদের।

এদিকে দুই জয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে শ্রীলঙ্কা। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কার চেয়ে ১২ পয়েন্ট বেশি নিয়েও এক ম্যাচ হারার কারণে তৃতীয় স্থানে রয়েছে পাকিস্তান। তাদের পয়েন্ট ৩৬। আর চার জয়, এক হার ও দুই ড্রয়ে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে ভারত।

এ ছাড়া বাংলাদেশের পরে যথাক্রমে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকা।

ঐতিহাসিক জয়ের পর টাইগার কান্ডারি মুমিনুল হক কৃতিত্ব দিলেন দলগত পারফরম্যান্সকেই। ম্যাচশেষে এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, দুই দলই ম্যাচটি জেতার জন্য মরিয়া ছিল। তবে আমরা আমাদের বোলারদের দারুণ নৈপুণ্যে ম্যাচে এগিয়ে গিয়েছি। এবাদত-তাসকিনরা দুই ইনিংসেই অসাধারণ পারফরম্যান্স দেখিয়েছে। বিশেষ করে এবাদত অবিশ্বাস্য ছিল।

মুমিনুল বলেন, সবশেষ কয়েকটা টেস্ট ম্যাচে আমরা ভালো করতে পারছিলাম না। তাই নতুন বছরে ঘুরে দাঁড়ানোর তাড়না ছিল। অবশেষে সেটা পেরেছি। তবে এ মুহূর্তে জয়টা আপাতত ভুলে যেতে চাই। আমাদের এখন সব ভাবনা দ্বিতীয় তথা ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট ঘিরে।

অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম লাথাম নিজেদের ব্যর্থতার কথাই তুলে ধরলেন। তিনি বলেন, তিন ফরম্যাটের কোনো ফরম্যাটেই আমরা ভালো করতে পারিনি। বাংলাদেশ আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে কীভাবে এমন উইকেটে মানিয়ে নিতে হয়। তারা ব্যাটিংয়ে দারুণ পার্টনারশিপ গড়েছে। এ ছাড়া বল হাতেও আঁটসাঁট বোলিং করে আমাদের ব্যাটারদের ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করেছিল। আমরা যা পারিনি।

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের উইকেট নিয়ে টম লাথাম বলেন, এখানে মাত্র দুটি টেস্ট ম্যাচ হয়েছে। দুটিই একইরকম হয়েছে। আমাদের ধারণাদের চেয়েও কিছুটা মন্থর ছিল পিচ।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন