রাজনীতিতে নতুন উত্তাপ লবিস্ট নিয়োগ ইস্যু

929
Fakhrul-Momen
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

রাজনীতিতে নতুন উত্তাপের নাম লবিস্ট ফার্ম। ক্ষমতায় টিকে থাকতে বা ক্ষমতা নামের পরশ পাথরের ছোঁয়া পেতে দেশের অর্থ খরচ করে বিদেশে লবিস্ট নিয়োগের অভিযোগ দেশের বড় দুই রাজনৈতিক দল- আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিরুদ্ধে।

লবিস্ট নিয়োগের শুরুটা ১৯৮২ সালে। রাষ্ট্রীর স্বার্থে বাংলাদেশের চা’য়ের বাজার প্রসারে ৫ হাজার ডলার দিয়ে। এখন রাজনীতির বাজারে যে লবিস্ট উত্তেজনা বিরাজ করছে তা দলীয় স্বার্থে নিয়োগের অভিযোগে। যা অস্বীকার করছে বড় দু-দলই। দেশের স্বার্থে বিদেশে লবিস্ট নিয়োগে কোনো অন্যায় দেখে না ক্ষমতাসীনরা আর বিএনপির বক্তব্য একেক সময় একেক রকম।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বলছে, দেশের স্বার্থে তদবিরে অন্যায় নেই তবে বিএনপির লবিস্টরা কাজ করেছেন দেশের স্বার্থের বিপক্ষে। আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিম জানান, রাজনৈতিক দল যখন দেশের অভ্যন্তরীণ ইস্যুতে দেশের টাকা বিনিয়োগ করে বিদেশে লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ করে।

আর আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য শেখ সেলিম জানান, যারা এ দেশকে বিশ্বাস করে না, তারা সবই করতে পারে। দেশ স্বাধীনের ৫০ বছর পরেও দেশের মানুষের বিরুদ্ধে বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করে।

তবে বিএনপি বলছে, দলীয় স্বার্থে লবিস্ট নিয়োগের শুরু আওয়ামী লীগের হাত ধরে। বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের সামর্থই নেই এখন। বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ জানান, লবিং করে বা অন্য কোনোভাবে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ করারা ক্ষমতা বিএনপির নেই। এছাড়া লবিস্ট নিয়োগের সামর্থ্য বিএনপির নেই। বলেন, আওয়ামী লীগ তাদের ভাবমূর্তি ধরে রাখার জন্য বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করলেও তা কোনো কাজে আসেনি।

দলীয় স্বার্থে লবিষ্ট নিয়োগের অর্থ বিদেশে নেয়া হলে তার বৈধতার প্রশ্ন নেই কারও মুখেই।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন