হামলার আশঙ্কায় ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আমেরিকানদের ইউক্রেন ছাড়ার অনুরোধ

683
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

রাশিয়ার সেনা মোতায়েন ও মহড়াকে কেন্দ্র করে পূর্ব ইউরোপে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চপর্যায়ের একজন কর্মকর্তা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, রাশিয়ার সেনারা যে অবস্থায় আছে, কয়েক দিনের মধ্যে তারা ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে। তাই যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের দ্রুত ইউক্রেন ছাড়ার অনুরোধ করেছেন তিনি।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান শুক্রবার সংবাদমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেন, আমাদের পর্যবেক্ষণ ও গোয়েন্দা তথ্য বলছে, রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালানোর জন্য সব ধরনের সামরিক যন্ত্রাংশ জড়ো করা সম্পন্ন করেছে।

এমন পরিস্থিতিতে সুলিভান, ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের ইউক্রেন ছাড়তে বলেছেন। ভ্রমণসংক্রান্ত কোনো সাহায্যের জন্য নাগরিকরা যেন কিয়েভে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসে যোগাযোগ করে।

সুলিভান বলেন, আকাশ পথে কিয়েভ শহরে দ্রুত হামলা চালানোর সম্ভাবনা আছে এবং আগামী সপ্তাহে শীতকালীন বেইজিং অলিম্পিক গেম শেষ হওয়ার আগেই তা শুরু হতে পারে।

যদিও হামলার সম্ভাবনার পাশাপাশি একই সঙ্গে হোয়াইট হাউসের এই নিরাপত্তা উপদেষ্টা জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বিশ্বাস করেন না যে পুতিন হামলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং সংকট নিরসনে কূটনৈতিক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

তিনি আরও বলেন, আমরা বলছি না যে প্রেসিডেন্ট পুতিন ইউক্রেন হামলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমরা যা বলছি তা হলো তাদের সীমান্তেই যা দেখছি তার ওপর ভিত্তি করে আমাদের যথেষ্ট উদ্বেগ রয়েছে। আমরা ইউক্রেন সীমান্তে নতুন বাহিনী আসাসহ রাশিয়ার উত্তেজনার বিষয়টি ধরতে পারছি। প্রেসিডেন্ট পুতিন নির্দেশ দিলে যে কোনো সময় হামলা শুরু হতে পারে।

সুলিভান জানিয়েছেন, যেহেতু বিকল্প বাণিজ্যিক পথ খোলা আছে। তাই প্রেসিডেন্ট চাচ্ছেন না যে এমন পরিস্থিতি তৈরি হোক, যাতে নাগরিকদের সরাতে ইউনিফর্মধারী পুরুষ ও নারীদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে হয়।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও দ্রুত ইউক্রেন ছাড়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন দেশটির নাগরিকদের। তিনি জানিয়েছিলেন, হামলা শুরু হলে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের উদ্ধার করা সম্ভব হবে না।

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে রাশিয়া ইউক্রেন সীমান্তে লক্ষাধিক সেনা মোতায়েন করেছে। এ ছাড়া প্রতিবেশী মিত্র দেশ বেলারুশের সঙ্গেও চলছে সামরিক মহড়া। ব্ল্যাক সিতেও অবস্থান নিয়ে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে রাশিয়ার নৌবাহিনী। যদিও বরাবরই দেশটি দাবি করে আসছে, ইউক্রেনে হামলার পরিকল্পনা নেই দেশটির। তবে দেশটি দাবি করে আসছে, কোনোভাবেই একসময়ের সোভিয়েতভুক্ত দেশ ইউক্রেনকে সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য করা যাবে না।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন