বিয়েবাড়িতে কুয়ায় পড়ে ১৩ নারী-শিশুর মৃত্যু

575
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন কুয়ায় পড়ে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১৩ জন নারী ও শিশুর। মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের কুশিনগরে। মৃতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা উত্তরপ্রদেশ সরকারের। অন্তত ১৫ জনকে গ্রামবাসী উদ্ধার করতে পেরেছেন বলে জানা গেছে। খবর আনন্দবাজারের।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কুশিনগরের নেবুয়া নওরঙ্গিয়া গ্রামে একটি বাড়িতে চলছিল বিয়ের গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। বাড়ির উঠানে সবাই জড়ো হয়েছিলেন। উঠানেই একটি পুরনো কুয়ো কংক্রিটের স্ল্যাব দিয়ে ঢাকা ছিল। সেখানে কেউ বসে, আবার কেউ দাঁড়িয়ে দেখছিলেন গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। এমন সময় ভেঙে পড়ে কংক্রিটের স্ল্যাবটি। অন্তত ২৫ থেকে ৩০ জন নারী ও শিশু পড়ে যান কুয়ার ভিতরে। মুহূর্তে হুলস্থুল পড়ে যায় বিয়েবাড়িতে। উদ্ধারকাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন সবাই। গ্রামবাসী শিশু ও নারী মিলিয়ে ১৫ জনকে উদ্ধার করতে পারলেও ১৩ জনের পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে রয়েছেন নারী ও শিশু।

জেলা শাসক এস রাজালিঙ্গম সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, কুয়ায় পড়ে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন এ দুর্ঘটনা ঘটে। নারীরা বাচ্চাদের নিয়ে কুয়ো ঢাকার স্ল্যাবের উপর বসে ও দাঁড়িয়ে ছিলেন। কিন্তু পুরনো স্ল্যাবটি ভার ধরে রাখতে পারেনি। স্ল্যাব ভেঙে সবাই কুয়োয় পড়ে যান।

মৃতদের পরিবারকে এককালীন ৪ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন সরকারি কর্মকর্তারা।

ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, উত্তরপ্রদেশের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন