ইউক্রেন-রাশিয়া সংকটের প্রভাব পড়তে পারে বাংলাদেশে

340
ইউক্রেন-রাশিয়ার প্রভাব পড়তে পারে বাংলাদেশে
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে চলমান সংকটের তাপ এসে স্পর্শ করতে পারে সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি মাইল দূরের বাংলাদেশকে। এরই মধ্যে রাশিয়াকে ঠেকাতে পশ্চিমারা অবরোধ দিতে শুরু করেছে। তবে প্রথম ধাপে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগ যে দুটি রাশিয়ান ব্যাংকের ওপর অবরোধ দিয়েছে তার একটি সে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক ভিইবি। যেখান থেকে আসছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রকল্প রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অর্থায়ন। সাড়ে ১২ বিলিয়ন ডলারের এই প্রকল্পের ৯০ শতাংশ বা সোয়া ১১ বিলিয়ন ঋণ দিচ্ছে রাশিয়া। কিন্তু সেখান থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত এসেছে মাত্র ৪ বিলিয়ন। তাই অবরোধের পর বাকী অর্থ আদৌ আসবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কায় অর্থনীতিবিদরা। তবে তা উড়িয়ে দিতে চায় সরকার।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, আমাদের কাজের অনেকটাই অগ্রসর হয়েছে। সেখানে প্রভাব ফেলবে না।

অর্থনীতিবিদ ড. আহসান মনসুর বলেন, এই প্রকল্প যদি মাঝ পথে আটকে যায় তাহলে এই ঋণের ভার কে নেবে? আর এটা যদি কোনো কারণে অসমাপ্ত থেকে যায় তাহলে তার দায়-দায়িত্ব কে নেবে?

অর্থনীতিবিদ ড. মাসরুর রিয়াজ বলেন, টাকার লেনদেন কীভাবে হবে? ব্যাংকগুলোই যদি আন্তর্জাতিক লেনদেনে নিষেধাজ্ঞায় পরে তাহলে তো এই ইস্যুতেই আটকে যাব আমরা।

এমন নিষেধাজ্ঞা পাওয়া ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লেনদেনকারিও কি কালো তালিকায় পরতে পারে- এ প্রশ্নের জবাবে ড. আহসান মনসুর বলেন, এমনটা হলে আমরাও এই তালিকায় পরতে পারি। কারণ আমেরিকার ধারা যে লঙ্ঘন করবে তাকেও কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞায় নিয়ে আসা হবে।

এদিকে ড. মাসরুর রিয়াজ বলেন, ফাইনান্সিয়াল ট্রানজেকশন হতে পারে, বিজনেস ট্রানজেকশন হতে পারে। সেক্ষেত্রে কিন্তু যারা নিষেধাজ্ঞা ইস্যুকারী দেশ তারা বাংলাদেশকেও শাস্তির আওতায় আনতে পারে।

হামলার জবাবে অবরোধের এই পরিস্থিতিতে টিকে থাকতে হলে বাংলাদেশের অবস্থান কি হওয়া উচিত সেটাও পরিষ্কার করলেন অর্থনীতিবিদরা।

ড. আহসান মনসুর এ বিষয়ে বলেন, যে অভিযোগ আসবে তা আমাদের জন্য প্রযোজ্য কিনা। যদি প্রযোজ্য হয় তাহলে রাজনৈতিক প্রচেষ্টা চালাতে হতে পারে। যেহেতু প্রজেক্ট অর্ধেকের মধ্যে রয়েছে তাই এটা শেষ করা যায় কিনা সেই প্রচেষ্টা চালাতে পারে।

এছাড়া ড. মাসরুর রিয়াজ বলেন, আমাদের এই ঝুঁকিগুলো এখনই বিশ্লেষণ করে কখন, কোন দিক থেকে আসতে পারে তার প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা প্রস্তুত করে রাখতে হবে।

ভবিষ্যৎ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আরও দক্ষ ও দূরদর্শী হবার বিকল্প নেই বলেই মত বিশেষজ্ঞদের।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন