শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা চলছে: শিক্ষামন্ত্রী

343
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

করোনার কারণে লেখাপড়ার যে ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বুধবার (২ মার্চ) সকালে ঢাকা কলেজে নতুন শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ওরিয়েন্টেশন কার্যক্রমের উদ্বোধন শেষে একথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, গত দুটা বছর তাদের পড়াশোনায় অনেক ক্ষতি হয়েছে। অনেকে পারিবারিক-সামাজিক এক ধরনের ট্রমার মধ্যে ছিল। তারা সেই সময়টাকে পার করে এসেছে। আমরা আশা করবো আগামী দিনগুলোতে আগের যে ঘাটতি সেটা পুষিয়ে নেওয়ার। এখানে শিক্ষকরাও যেমন চেষ্টা করবেন, তেমনি শিক্ষার্থীদেরও চেষ্টা করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের আজকে প্রাথমিকের ক্লাস শুরু হলো। আমরা আশা করছি আমাদের মাধ্যমিকেও শিগগিরই স্বাভাবিক জায়গায় চলে যাবার চেষ্টা করবো।

মন্ত্রী বলেন, যেখানে ঘাটতি রয়েছে সেখানে নজর দেব বেশি। আমরা হয়তো এক শিক্ষাবর্ষে সব ঘাটতি পূরণ করতে পারবো না কিন্তু আগামী শিক্ষাবর্ষে সেটুকু পূরণ করতে পারবো।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যাবে এইচএসসি দিয়ে, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সঙ্গে কথা বলবো। তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম দিককার অন্তত কয়েকটি সপ্তাহ যদি তারা যে বিষয় পড়বে, সে বিষয় আগের ক্লাসে পড়ে এসেছে সেখানে যদি ঘাটতি থাকে সেটার প্রাথমিক একটা অ্যাসেসমেন্ট করে নিয়ে সেখানে যদি ক্লাস করিয়ে নেয় তাহলে সেটা পূরণ করা যাবে।

উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীরা এখনও সবাই বই পায়নি- এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনার সময়ে কাগজ নিয়ে অনেক সময় সমস্যা হয়েছে, টেন্ডার করতে সমস্যা হয়েছে। আশা করি দ্রুতই বই পেয়ে যাবে।

আজ থেকেই শুরু হলো প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণীকক্ষে পাঠদান। আজ থেকে সব ক্লাস চলবে স্বাভাবিকভাবে। তবে মাধ্যমিকে সীমিত সংখ্যক ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। আর প্রাক-প্রাথমিক স্তরের শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হবে আরও দুই সপ্তাহ পর।

প্রাথমিক স্তরে ক্লাস চলবে ২০ রমজান পর্যন্ত। ২১ রমজান থেকে ঈদের ছুটি থাকবে। এরপর আবার ক্লাস শুরু হবে। এদিকে ২০২২ সালের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষা কার্যক্রমও শুরু হয়েছে আজ থেকে।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন