ইস্তাম্বুল বৈঠকে কিয়েভ নিয়ে সিদ্ধান্ত জানালো রাশিয়া

344
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ ও চেরনিহিভে সামরিক কার্যকলাপ কমানোর আশ্বাস দিয়েছে মস্কো। তুরস্কের ইস্তাম্বুলে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে রাশিয়া। এটি দুদেশের মধ্যে আস্থা বাড়ানোর প্রথম পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

আলজাজিরার প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে শুরু হওয়া বৈঠকে বক্তব্য দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। এ সময় তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে তার গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করেন।

এরদোগান বলেন, এই আলোচনার অগ্রগতি দুই নেতার সাক্ষাতের সুযোগ তৈরি করবে। আর সেই আলোচনা আয়োজনের জন্যও তুরস্ক প্রস্তুত রয়েছে ।

বৈঠকে ইউক্রেনের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেকসি রেজনিকোভ এবং প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কার্যালয়ের প্রধান মিখাইল পোডোলিয়াক।

বৈঠকের পর রুশ উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যালেক্সান্ডার ফোমিন বলেছেন, আলোচনার পরিবেশ সৃষ্টি করতে রাশিয়া কিয়েভ এবং চেরনিহিভের কাছে লড়াইয়ের তীব্রতা কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অন্যদিকে, ইউক্রেন হামলা থেকে সুরক্ষা পাওয়ার আন্তর্জাতিক নিশ্চয়তা পেলে নিরপেক্ষ অবস্থান বজায় রাখার প্রস্তাব দিয়েছে। ইউক্রেনের আলোচকরা বলেছেন, তারা এমন একটি অবস্থান বজায় রাখার প্রস্তাব দিয়েছেন, যার আওতায় ইউক্রেন কোনও জোটে যোগ দেবে না কিংবা বিদেশি সেনা রাখার ঘাঁটিও হবে না।

তবে ন্যাটোর ‘অনুচ্ছেদ ৫’ যৌথ প্রতিরক্ষা নীতির মতো ব্যবস্থার আওতায় ইউক্রেনের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা থাকবে। এ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, যে কোনো একটি মিত্রদেশের ওপর আক্রমণকে সব মিত্রের ওপর হামলা হিসাবে বিবেচনা করা হয়।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন