দেশে কখন কোথায় ঈদ জামাত

90
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

করোনার কারণে গত দুই বছর প্রায় বন্ধ ছিলো ঈদ জামাত। সংক্রমণ কমে আসায় এবার দেশে ফিরেছে চিরচেনা আমেজ। দেশজুড়ে বিভিন্ন ঈদগাহের পাশাপাশি পাড়া মহল্লায়ও চলছে ঈদ জামাতের প্রস্তুতি। নির্ধারিত হয়েছে জামাতের সময়সূচি।

রোববার বাংলাদেশের আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে মঙ্গলবার। ঈদে নিরাপত্তা নিশ্চিতে সতর্ক অবস্থানে সক্রিয় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

দুই বছর পর এবার রোজার ঈদের প্রধান জামাতটি হবে সকাল ৮টায় ঢাকার জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ, কূটনীতিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সেই জামাতে নামাজ পড়বেন ঈদের সকালে। মহামারীর কারণে গেল চারটি ঈদে ঈদগাহ ছিলো আয়োজনশূন্য।

চট্টগ্রাম নগরীতে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদে। সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে প্রধান জামাত। দ্বিতীয় জামাত সকাল ৯টায়। এবার নগরীর ৯৫টি স্থানে ঈদ জামাতের আয়োজন করেছে কেন্দ্রীয় ঈদ জামাত কমিটি। এ ছাড়া বিভিন্ন এলাকায়ও চলছে ঈদ জামাতের প্রস্তুতি।

রাজশাহীর হযরত শাহমখদুম রূপোস কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮টায়। তবে আবহাওয়া বৈরি থাকলে ঈদগাহ ময়দানের পরিবর্তে প্রধান জামাত হবে হযরত শাহমখদুম দরগা শরীফ জামে মসজিদে।

বরিশালে এবার রেকর্ড সংখ্যক ৫৫০টি মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে ঈদের জামাত। বড় মসজিদগুলোতে সকাল ৮টা থেকে বেলা ১০টা পর্যন্ত প্রতি ৪৫ মিনিট পর অনুষ্ঠিত হবে ঈদ জামাত।

সিলেটে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে নগরের শাহী ঈদগাহে। এ ছাড়াও শাহজালাল ও শাহপরান মাজারেও অনুষ্ঠিত হবে ঈদের জামাত। ঈদ জামাতকে ঘিরে কয়েকস্তরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

খুলনায় ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮টায় সার্কিট হাউজ ময়দানে। এ ছাড়া নগরীর ৩১টি ওয়ার্ডে সিটি কর্পোরেশনের সহায়তায় ও ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের তত্ত্বাবধানে আলাদাভাবে অনুষ্ঠিত হবে ঈদ জামাত।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন