পদ্মা সেতু উদ্বোধনের অপেক্ষা, চলছে শেষ সময়ে সৌন্দর্যবর্ধন

186
২৫ জুন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী: ওবায়দুল কাদের
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

উদ্বোধনের অপেক্ষায় পদ্মা সেতু। মূল সেতুর নির্মাণ কাজ শেষে এখন চলছে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ। সেতুর ল্যাম্প পোস্টে দেয়া হয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ। নানান চরাই-উৎরাই পেরিয়ে পদ্মা সেতুর স্বপ্ন এখন বাস্তব। পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে বদলে যাচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অর্থনীতি।

অপেক্ষার পালা এবার শেষ, এখন সেতু উদ্বোধনের ক্ষণ গণনা শুরু। আর মাত্র ২৪ দিন।

২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর জাজিরা ও মাওয়া প্রান্তকে যুক্ত করেছিল সেতুতে বসানো সবশেষ ৪১ নম্বর স্প্যান। ২০২১ সালের ২৩ আগস্ট বসানো হয় সেতুর শেষ রোডওয়ে স্ল্যাব। ৬ দশমিক এক পাঁচ কিলোমিটার পদ্মা সেতুতে বসেছে ৪শ ১৫টি ল্যাম্প।

সেতুর উদ্বোধন ঘিরে টোল প্লাজার সামনে চলছে ম্যুরাল ও নামফলক নির্মাণ কাজ। ২৫ জুন সেতু উদ্বোধনের খবরে উচ্ছ্বসিত পদ্মা পাড়ের জেলা শরীয়তপুরের মানুষ। সেতু ঘিরে জাজিরায় লেগেছে পরিবর্তনের হাওয়া। সরকারি-বেসরকারি নানা উদ্যোগে বদলে যাচ্ছে পদ্মা পাড়ের চিত্র।

স্বপ্নের সেতু নির্মাণে সহযোগিতার জন্য স্থানীয়দের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, এতে দেশের জিডিপি বাড়বে ২ শতাংশ।

২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর শরীয়তপুরের নাওডোবায় পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয়েছিল সেতুর প্রথম স্প্যান।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন