বরিস সরলে নতুন প্রধানমন্ত্রী হবেন কে?

243
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

লকডাউন ও করোনা বিধিনিষেধ ভেঙে বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে মৌজ-মাস্তি। এমন একের পর এক কেলেঙ্কারির জেরে অবশেষে অনাস্থা ভোটের মুখে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সোমবার (৬ জুন) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে অনাস্থা ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

বরিস অবশ্য বলছেন, শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবেন তিনি। তবে অনাস্থা ভোটে হারলে তাকে নিশ্চিতভাবেই প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তে হবে। এজন্য কনজারভেটিভ পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠ সংসদ সদস্যকে তথা পার্লামেন্টের ১৮০ জন সদস্যকে তার বিরুদ্ধে ভোট দিতে হবে।

এদিকে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কে হতে পারেন তা নিয়ে ইতোমধ্যে জল্পনা শুরু হয়ে গেছে। দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন বলছে, অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে বরিস ক্ষমতাচ্যুত হলে নির্বাচনের মাধ্যমে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী বেছে নেবে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি।

তবে সেখানে আর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না বরিস। তবে অন্তত পাঁচ রাজনীতিক পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার এ দৌড়ে অংশ নেবেন বলে মনে করা হচ্ছে। এখানে সংক্ষেপে তাদের পরিচয় তুলে ধরা হলো-

বর্তমানে বরিসের মন্ত্রিসভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন লিজ ট্রাস। করজারভেটিভ পার্টির তৃণমূল পর্যায়ে বেশ জনপ্রিয় তিনি। দলের ওয়েবসাইট কনজারিভেটিভ হোমের চালানো জরিপে দলের সদস্যদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় প্রায়ই শীর্ষে থাকেন তিনি। ট্রাস নিজেকে প্রধানমন্ত্রিত্বের জন্য বেশ সতর্কতার সঙ্গে মানসিকভাবে প্রস্তুত করছেন।

ট্রাস সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একের পর এক ছবি পোস্ট করছেন। কখনও রেড কার্পেটে হাটার ছবি। আবার কখনও সাবেক নারী প্রধানমন্ত্রী ও ‘আইরন লেডি’ খ্যাত মার্গারেট থ্যাচারের অনুকরণে মাথায় স্কার্ফ পরা ছবি দিচ্ছেন। এ ছাড়া সম্প্রতি ইউক্রেন রাশিয়ার সামরিক অভিযানের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে বেশ তৎপর দেখা যাচ্ছে।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন