২৭ জুলাই বাংলাদেশে বসছে ডি-এইট’এর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক

522
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

আগামী ২৭ জুলাই (বুধবার) বাংলাদেশে বসছে উন্নয়নশীল মুসলিম রাষ্ট্রের জোট ডি-৮এর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক।
২৭ জুলাই বাংলাদেশে বসছে ডি-এইট’এর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক

ব্যবসা-বাণিজ্য কেন্দ্রবিন্দুতে থাকলেও বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতিতে জ্বালানিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের সংকট ইস্যু দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় কতটা উঠে আসবে তাই এখন দেখার বিষয়।

আটটি দেশের মধ্যে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলিত কাভাসগলু এবং পাকিস্তানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিনা রাব্বানী খানের ঢাকায় আসা নিশ্চিত করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। প্রায় ১০ বছর পরে পাকিস্তানের কোনো মন্ত্রী আসছেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্ববাজার পরিস্থিতিতে এ দেশগুলোর একমত হবার সুযোগ থাকছে ঢাকার সামনে।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে কেন্দ্র করে জ্বালানি সংকট ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে। যুদ্ধ দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার শঙ্কা যত বাড়ছে খাদ্যদ্রব্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর অভাব বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবনকে ততো দুর্বিষহ করে তুলছে। এর মাঝেই বাংলাদেশের ঘাড়ে ১১ লাখ রোহিঙ্গার বাড়তি বোঝা তো রয়েছেই।

এরমধ্যে ২৭ জুলাই বাংলাদেশে বসছে উন্নয়নশীল মুসলিম রাষ্ট্রের জোট ডি-এইট’এর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক।

সম্মেলনে যোগ দেবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলিত কাভাসগলু। ডি-৮ এর বর্তমান সভাপতি বাংলাদেশের আমন্ত্রণে অন্য সদস্য রাষ্ট্র মিসর, ইরান, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া এবং নাইজেরিয়ার প্রতিনিধিরাও যোগ দেবেন বৈঠকে।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানান, সম্মেলনের সাইড লাইনে ইরান, তুরস্কসহ কয়েকটি দেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার সম্ভাবনা রয়েছে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের। উঠে আসতে পারে জ্বালানি সংকট নিয়ে ধুকতে থাকা এবং তা প্রাপ্তির ইস্যুও।

সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, বাংলাদেশের যে সমস্ত অফারগুলো ছিল সেগুলোর ব্যাপারে কী কী অগ্রগতি হয়েছে সেগুলো আমরা পর্যালোচনা করব।

বিশেষজ্ঞদের মতে, সরাসরি এ দেশগুলো জ্বালানির বাজার না হলেও, বিশ্ববাজার পরিস্থিতিতে ঐক্যমতে পৌঁছানোর সুযোগ থাকছে ঢাকার।

জ্বালানি বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী খন্দকার সালেক সূফী বলেন, বাংলাদেশের বিকল্প সূত্র খোঁজা জ্বালানি সরবরাহের জন্য। বিশেষ করে কয়লা এলএনজি যথেষ্ট সুযোগ আছে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সেটা তাদের কাছে তুলে ধরা।

করোনা মহামারির কারণে উন্নয়নশীল এ ৮ দেশের ১০ম ডি-এইট শীর্ষ সম্মেলন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গত বছরের ৮ এপ্রিল ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন