মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শের প্রকৃত ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে- খাদ্যমন্ত্রী

189
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক
মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শের প্রকৃত ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। বলেছেন, বিশ্বের জঘন্যতম রাজনৈতিক হত্যাকান্ড ১৫ আগস্ট কালরাত্রিতে সংগঠিত হয়েছিল। খুনিরা ভেবেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে তাঁর আদর্শ, রাজনীতির দর্শন ধ্বংস করা যাবে। তাদের সেদিনের ধারনা ভুল প্রমাণিত হয়েছে।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আজ সোমবার (১৫ আগস্ট) সকালে রাজধানীর খাদ্য ভবনের সভা কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক মো: সাখাওয়াত হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: ইসমাইল হোসেন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কায়উম সরকার প্রমুখ।
আলোচনাসভার শুরুতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ঘাতকের হাতে নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার সবার স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতির মুক্তি ও একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন সংগ্রাম করেছেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের ব্যাপকতার কারণেই বাংলাদেশ রাষ্ট্র যতদিন থাকবে, তাঁর অবদান মুছে ফেলা যাবে না।
তিনি বলেন, একসময় এদেশে মুক্তিযুদ্ধের বিকৃত ইতিহাস শেখানো হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ইমেজ নষ্ট করতে প্রোপাগন্ডা চালানো হয়েছে। ষড়যন্ত্র এখনও চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শের প্রকৃত ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে।

শোককে শক্তিতে পরিণত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে কাজ করে চলেছেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কোন ষড়যন্ত্র এদেশের উন্নয়ন ব্যাহত করতে চাইলে জনগণকে সাথে নিয়ে শক্তভাবে তা মোকাবিলা করা হবে।

এর আগে খাদ্যমন্ত্রী খাদ্য ভবনের নিচ তলায় স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে খাদ্যমন্ত্রী তেজগাঁও সেন্ট্রাল স্টোরেজ ডিপোতে (সিএসডি) বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর ও বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন করেন, সিএসডি প্রাঙ্গণে একটি গাছের চারা রোপণ করেন এবং দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন