বাংলাদেশ সীমানায় আর মর্টারশেল ঢুকবে না, আশ্বাস মিয়ানমারের

5
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

দুর্ঘটনাবশত আর আকাশসীমা লঙ্ঘন বা মর্টারশেল বাংলাদেশ সীমানায় ঢুকবে না বলে ঢাকাকে আশ্বস্ত করেছে মিয়ানমার। বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, বিদ্রোহীদের দমনে অভিযান চালাচ্ছে সে দেশের সেনাবাহিনী। সীমান্তবর্তী এলাকায় অভিযান চলার কারণে বাংলাদেশ সীমান্তের বান্দরবানের ঘুমধুম ও তমব্রু এলাকায় এর প্রভাব পড়ছে।

এ কে আব্দুল মোমেন আরও জানান, মিয়ানমারের যুদ্ধবিমান ও হেলিকপ্টারের আকাশসীমা লঙ্ঘন ও বাংলাদেশের ভূখণ্ডে মর্টারশেল এসে পড়া অনিচ্ছাকৃত বলেও দাবি করেছে নেপিদো।

মন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারে কিছুটা সংঘাত হচ্ছে। এটা জানার পর থেকে আমাদের দিক থেকে যেসব ব্যবস্থা নেওয়ার আমরা সেটা নিয়েছি। প্রথমত আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, কোনো রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেব না। আমাদের বর্ডার পুলিশসহ অন্যান্য ফোর্সকে ইতিমধ্যে সতর্ক করে রেখেছি এবং তারা পুরোপুরি অ্যালার্ট।

মিয়ানমারের কর্মকাণ্ডের দিকে সর্তক নজর রাখা হচ্ছে। নতুন করে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সীমান্ত সীল করে দেওয়া হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন মন্ত্রী।

গত ৩ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম এলাকায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুইটি গোলা এসে পড়ে। তার আগে গত ২৮ আগস্ট বিকাল ৩টার দিকে মিয়ানমার থেকে নিক্ষেপ করা দুইটি মর্টার শেল অবিস্ফোরিত অবস্থায় ঘুমধুমের তমব্রু উত্তর মসজিদের কাছে পড়ে। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষজ্ঞ দল সেগুলো নিষ্ক্রিয় করে।

এই ঘটনায় ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত উ অং কিয়াউ মোকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের স্বার্থে রাখাইনে শান্তি, স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তা প্রয়োজন বলে সেটির বিষয়েও নেপিদোকে ঢাকার তরফ থেকে তাগিদ দেওয়া হয়।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন