সরকার বিদ্যুৎ সেক্টরকে বেছে নিয়েছে টাকা আয়ের জন্য : ফখরুল

153
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ এ দেশের সমাজকে বিভক্ত করে ফেলেছে। তারা কোন ভালো কাজ করতে পারেনি। সংবিধানকে কাটাছেঁড়া করে অকার্যকর করেছে। নির্বাচন ব্যবস্থা ভেঙে দিয়েছে। এই সরকারের অধীনে কোন সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না।

শুক্রবার (১০ মার্চ) দুপুরে সিলেট রেজিস্ট্রি মাঠে মহানগর বিএনিপর সম্মেলন ও কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বক্তব্য দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ নিজেদের স্বার্থে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। অর্থনীতিকে এমনভাবে ধ্বংস করা হয়েছে যে একে টেনে তোলা কঠিন।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, উন্নয়নের নামে সরকার মানুষের পকেট কাটছে। গুটিকয়েক মানুষের উন্নয়ন হচ্ছে। সাধারণ মানুষ খাবার পায় না, হাসপাতালে চিকিৎসা পায় না অথচ উন্নয়নের নামে লুটপাট চলছে। ১০ হাজার কোটি টাকার পদ্মাসেতু তৈরি করতে ৩০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছে। বড় বড় প্রকল্প হচ্ছে বড় বড় চুরির জন্য।

শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় পরিণত হয়েছে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে। বলেন, শক্তি দিয়ে, রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করে অন্যায়ভাবে দেশ পরিচালনা করছে আওয়ামী লীগ।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার বিদ্যুৎ সেক্টরকে বেছে নিয়েছে টাকা আয় করার জন্য, চুরি করা জন্য। বিদেশি কোম্পানি আদানি গ্রুপের সঙ্গে চুক্তির জন্য দেশের বিপুল পরিমাণ অর্থের ক্ষতি হবে। বিদ্যুতের দাম হবে দ্বিগুণ।

এর আগে পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলন ও কাউন্সিল উদ্ধোধন করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন