নার্সিং পেশাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

103
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নার্সিং পেশা অত্যন্ত মহৎ সেবাধর্মী একটি কাজ। তাই এ পেশাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে।

বুধবার (১৫ মার্চ) গাজীপুরের কাশিমপুরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতালের নার্সিং কলেজের দ্বিতীয় স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, নার্সিংই সব থেকে বিশ্বস্ত সেবা; তাই ক্ষমতায় এসে একে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে বর্তমান সরকার। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে এটি নিয়ে বিশেষভাবে কাজ করছে। নার্সিং পেশাকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয়েছে। এ পেশায় শিক্ষার্থীদের আসার জন্য আকর্ষণ বাড়াতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ১০ হাজার নার্স ও ৫ হাজার মিডওয়াইফ নিয়োগ চূড়ান্ত করা হয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিকে বিনামূল্যে ওষুধের পাশাপাশি ইনসুলিনও দেয়া হবে।

তিনি বলেন, যুব সম্প্রদায় নার্সিং পেশায় যুক্ত হয়ে দেশের পাশাপাশি বিদেশেও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে। শুধু দেশে নয়, কর্মসংস্থানে বিদেশেও ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এ পেশার।

এখন তো ডক্টরেটও করা যায় নার্সিংয়ে–এ কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের বাইরে থাইল্যান্ড ও ভারতে প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে নার্সদের; যাতে তারা আরও সক্ষম হয়ে উঠতে পারেন এ কাজে।

দেশের সব বিভাগেই একটি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে; সে ক্ষেত্রে দেশেও প্রচুর নার্স প্রয়োজন হবে। এ জন্য ১০ হাজার নার্স ও ৫ হাজার মিডওয়াইফের পদ সৃষ্টির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়ার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

ওষুধ বা চিকিৎসার পাশাপাশি নার্সদের ভালো ব্যবহার রোগীকে সুস্থ হয়ে উঠতে সাহায্য করে, এতে তাদের নতুন আত্মবিশ্বাস জোগায় বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সাভার ও গাজীপুরের মানুষের সেবায় কাশিমপুরে মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হবে; এ বিশেষায়িত হাসপাতালের পাশাপাশি নতুন কলেজটিতেও মানুষ আরও সেবা পাবে।

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জীবনাদর্শ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সব আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর পাশে ছিলেন আমার মা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। বাবাকে সব ধরনের কাজে সহযোগিতা করতেন তিনি।’

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কলেজে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর এ প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট, হাসপাতাল সফটওয়্যার ও কেপিজে ঢাকা জার্নাল অব মেডিকেল সায়েন্সের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজের সিইও মো. তৌফিক বিন ইসমাইল।

অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তা হিসেবে উপস্থিত আছেন মালয়েশিয়া কেপিজে হেলথকেয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ইমেরিটাস দাতো ডা. লোকমান সাইম।

প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে হাসপাতাল এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। পুরো এলাকা ঘিরে রেখেছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন