স্বাধীনতার ৫১ বছর পরও গনতন্ত্রের জন্য প্রাণ দিতে হচ্ছে : ফখরুল

77
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাধীনতার চেতনায় দেশে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বলেছেন, আমরা যখন স্বাধীনতার যুদ্ধ করেছিলাম, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ঘোষণার মধ্য দিয়ে আমাদের যে স্বপ্ন ছিল, যে আশা-আকাঙ্ক্ষা ছিল একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণ করা। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের আজকে ৫১ বছর পরেও সেই গণতন্ত্রের জন্য আমাদেরকে প্রান দিতে হচ্ছে, লড়াই করতে হচ্ছে, সংগ্রাম করতে হচ্ছে।

রোরবার (২৬ মার্চ) সকালে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে ৫৩তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে জাতির সূর্য সন্তানদের প্রতি বিএনপির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এ কথা বলেন তিনি। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শাহাজাহান ওমর, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, নাজিম উদ্দিন আলম, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু আশফাক, সাধারণ সম্পাদক নিপুন রায় চৌধুরী এবং বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের ভোটাধিকার আজকে হারিয়ে গেছে, আমাদের কথা বলার অধিকার হারিয়ে গেছে, সাংবাদিকদের সত্য কথা লেখার অধিকার হারিয়ে গেছে। আমাদের দেশের সত্যিকার অর্থে একটি কর্তৃত্ববাদী ফ্যাসিবাদ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

তিনি বলেন, আজকে এই মহান দিনে আমরা শপথ গ্রহণ করছি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের পক্ষ থেকে আমরা ভোটের অধিকারের জন্য, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য, মানুষের যে কষ্ট চাল ডাল তেল সহনীয় পর্যায়ে আনার জন্য এবং দেশকে সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য আমরা যে সংগ্রাম শুরু করেছি সে সংগ্রাম আমরা চালিয়ে যাব।

এসময় দলের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে দেশবাসীকে স্বাধীনতার শুভেচ্ছা জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, স্বাধীনতা অর্জনের জন্য আমাদের লাখো শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। জিয়াউর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি এবং সেই সাথে বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামে যারা শহীদ হয়েছেন তাদের প্রতিও শ্রদ্ধা নিবেদন করছি।

এদিকে, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের (বীর উত্তম) মাজারে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিএনপি নেতারা। রোববার (২৬ মার্চ) সকাল ১০টায় শেরে বাংলা নগর এলাকায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানানোর আগে নারায়ে তাকবীর, আল্লাহু আকবার’ স্লোগান দিয়ে মিছিল শুরু করতে দেখা যায় তাদের। পরে ‘জিয়ার সৈনিক, এক হও’; ‘লড়াই করো’- এমন নানা স্লোগান দিতে দেখা যায় বিএনপি নেতাকর্মীদের।

এর আগে ৫৩তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে রোববার ভোর ৬টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ দেশব্যাপী সব দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে সকাল ৭টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় থেকে দলের জাতীয় নেতারাসহ সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা জাতীয় স্মৃতিসৌধের উদ্দেশে যাত্রা করেন। সেখানে পৌঁছে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা।

পরবর্তীকালে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে ঢাকায় ফিরে এসে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে দলের জাতীয় নেতারা ছাড়াও সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা পুষ্পস্তবক অর্পণসহ ফাতেহা পাঠ করেন।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন