৮১ দিন পর হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরছেন খালেদা জিয়া

650
শেয়ার করতে ক্লিক করুন

করোনা ও ওমিক্রন সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বিস্তার লাভ করার পরিপ্রেক্ষিতে এভার কেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ডের সিদ্ধান্তে বিএনপি চেয়ারপারসন গুলশানের বাসায় ফিরছেন বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন।

তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের অবস্থা আগের মতোই আছে। কিন্তু সারাদেশে করোনা ও ওমিক্রন সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এভার কেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড ম্যাডামকে স্বাস্থ্য সুরক্ষার স্বার্থে বাসায় নিয়ে চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন।

‘এই পরিপ্রেক্ষিতে ইনশাআল্লাহ ম্যাডামে আজকে ৬টার পর গুলশানের বাসা ফিরোজায় ফিরবেন। সকল প্রস্তুতিও নেয়া হয়েছে।’

খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে, এভার কেয়ার হাসপাতালেও গত জানুয়ারি মাসে করোনা এবং ওমিক্রন সংক্রমণের টেস্টে তিন শতাধিক আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এই বিষয়টি খালেদা জিয়ার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড বিবেচনায় নিয়েই তাকে বাসায় চিকিৎসার সিদ্ধান্ত দিয়েছে।

অধ্যাপক জাহিদ জানান, এভার কেয়ার হাসপাতালের মেডিকেল বোর্ড বিকেল সাড়ে ৫টায় হাসপাতালের ১১তলায় সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানাবেন।

গত ১৩ নভেম্বর খালেদা জিয়া লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত হয়ে বসুন্ধরার এভার কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক অধ্যাপক শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে নিবিড় চিকিৎসার জন্য ১৩ নভেম্বর ভর্তির পরপরই সিসিইউতে নিয়ে যায়। দীর্ঘ দুই মাস পর সেখানে চিকিৎসার পর গত ১০ জানুয়ারি খালেদা জিয়াকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়।

এভার কেয়ার হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ একই সঙ্গে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে অধ্যাপক শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি বিশেষজ্ঞ মেডিকেল বোর্ডে গঠন করে।

অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডাম সুস্থ হননি। তার যে রক্তক্ষরণ হতো সেটা এখন আপাতত বন্ধ আছে। তবে চিকিৎসক বোর্ডের আশঙ্কা যেকোনো সময়ে তার অবনতি হতে পারে। ম্যাডামের সর্বোত্তম চিকিৎসা এখানে (এভার কেয়ার হাসপাতাল) দেয়া হলেও তার রোগের উন্নত চিকিৎসা এখানে নেই।

শেয়ার করতে ক্লিক করুন